দারুন এই কৌ’শলগুলো আপনার রান্নাঘরের ক’ষ্টের জীবনকে অনেকটা সহজ করে দিবে!

এমন অনেক কৌশল রয়েছে যা আমাদের সময় এবং চেষ্টাকে বাঁ’চাতে এবং আরও খাবার-দাবার আরো দীর্ঘ সময়ের জন্য রাখতে সহায়তা ক’রতে পারে। আপনাদের জন্য তেমনই কিছু কৌশল নিয়ে হাজির হয়েছি যেগুলো আপনার রান্নাঘরের জীবনকে অনেক সহজ করে দিবে। চলুন কৌশল্গুলো জে’নে নিই।

ডিম ফ্রিজে অনেকদিন সংরক্ষণ ক’রতে প্রথমে ডিমের গায়ে সামান্য ভেজিটেবল ওয়েল মাখিয়ে নিন তারপর ফ্রিজে রাখু’ন।

আপনার পুরো খাবার ওভেনে সমানভাবে গরম ক’রতে এটি প্লেটের চারপাশে এভাবে ছ’ড়িয়ে দিন।

আপনার কাটিং বোর্ড এর পিছলা খাওয়া রো’ধ ক’রতে বোর্ডের নিচে একটি ভেজা কাপড় বিছিয়ে দিন।

আপনার যদি ছুরি ধার করার বিশেষ কিছু না থাকে তবে আপনি সাধারণ সিরামিক কাপ ব্যবহার ক’রতে পারেন। কাপটি উল্টো করে রাখু’ন এবং আপনার ছুরি সামনের দিকে কয়েক বার ঘষুন, উপকার পাবেন।

সবুজ শাক- সবজী প’রিষ্কার করুন এবং তা শুকান। প্লাস্টিকের ব্যাগের নীচে তাদের রাখু’ন, এটিকে বায়ু দিয়ে পূরণ করুন এবং তা ভালোভাবে ব’ন্ধ করুন। এই পদ্ধতিতে আপনি আপনার সবুজ শাকসবজি সতেজ এবং সবুজ রাখতে পারবেন।

ছোটো এমন কোনো পাত্রে মসলা সংরক্ষণ করুন যা ব্যবহারে সহজ এবং সময় কম লাগে।

মাছ গ্রিল ক’রতে লেবু চাদরের মতো বিছিয়ে তাঁর উপর মাছ রাখতে পারেন। এতে আপনার মাছ গ্রিলে লে’গে যাবে না এবং মাছে চমৎকার লেবুর স্বাদও যুক্ত হবে।

ফ্রিজে কোনো বোতল রাখতে পেপার ক্লিপ ব্যবহার ক’রতে পারেন, এভাবে রাখলে আপনার ফ্রিজে’র যায়গাও বেঁ’চে যাবে।

বার্গার বানাতে পারফেক্ট ডিম অমলেট এর জন্য কোনো রিং এর মতো কিছু ব্যবহার ক’রতে পারেন।

যদি আপনার চিপসগুলো আদ্র বাতাস বা পানির সংস্প’র্শে চলে আসে তাহলে সেগুলো ফে’লে দেওয়ার কোনো কারণ নেই।

-একটি প্লেট নিন। এতে একটি কাপড় বা একটি রান্নাঘর তোয়ালে রাখু’ন এবং উপরে আপনার চিপস ছ’ড়িয়ে দিন।

-অথবা চিপসগুলো একটি তোয়ালে দিয়ে ঢেকে দিয়ে তা ৩০ সেকেন্ড এর জন্য মাইক্রো ওভেনে রাখু’ন।

সুখবর! আপনার চিপস আবারো মচমচে হয়ে গিয়েছে।

মাত্র কয়েক ফোটা লেবুর রসের জন্য পুরো লেবু কাঁটার দরকার নেই। একটি টুথপিক নিন এবং লেবুতে চা’প দিয়ে একটি ছিদ্র করুন। প্রয়োজনমত রস নিয়ে ছিদ্রটি টেপ দিয়ে আ’টকে দিন এবং ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

সহজে ডিম এর খোসা ছাড়ানোর কয়েকটি উপায় রয়েছে। এর মধ্যে একটি হলোঃ ডিমের খোসা ফাটিয়ে অল্প কিছুক্ষণ ঠান্ডা পানিতে ঠান্ডা হতে দিন। দেখবেন সহজেই ডিমের খোসা ছাড়ানো যাচ্ছে।

কাটিং বোর্ডের হাতল এর যায়গাটি সবজী সহজে বাটিতে ঢালতে ব্যবহার ক’রতে পারেন। এতে সবজী বাটির বাহিরে পরে যাবেনা।

রান্নাবান্নার পর রান্নার ঘরের দূ’র্গন্ধ দূ’র ক’রতে- একটি লেবু কে’টে এর মধ্যে কিছুটা লবণ ঢুকিয়ে দিন। এরপর এটি একটি প্লেটে করে এভাবে ঘন্টাখানেক রেখে দিন। দেখবেন রুম চমৎকার ঘ্রাণে ভরে গেছে।

ডিমের কুসুম আলা’দা ক’রতে খালি বোতল ব্যবহার ক’রতে পারেন। বোতলে চা’প দিয়ে বোতলের মুখ কুসুম এর কাছাকাছি ধ’রুন এবং আস্তে আস্তে বোতল ছাড়তে থাকুন। দেখবেন কুসুম আলা’দা হয়ে বোতলে ঢুকে গিয়েছে।

নরম খাবার কাটতে ডেন্টাল ফ্লস ব্যবহার করুন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*