সা’বধান!! নখ কাটার সময় এ ভুলগুলো কখনোই করবেন না …

নখ সবসময় প’রিষ্কার রাখা উচিত। যদিও নারীরা নখের একটু বেশিই যত্ন করে থাকেন। নখ বড় ও চিকন হয়ে গেলে ভে’ঙে যাওয়ার আশ’ঙ্কা থাকে। তাই এ অব’স্থায় আসার আগেই নখ কে’টে ফেলা উচিত। আর নখ কাটার সময় অনেকেই যে ভুলগুলো করে বি’পদ ডেকে আনছে, সেগুলো জে’নে নিন-

যদি সঠিকভাবে নখ কাটা না হয়, তাহলে হ্যাঙ্গনেলস, ওনিকোলাইসিস, ইনগ্রোন নেলস (যা বেশিরভাগ পায়ের নখে হয়) ইত্যাদি স’মস্যা হতে পারে। দাঁত দিয়ে নখ কাটলেও নখের ক্ষ’তি হয়।
নখ কাটলে বা ট্রিম করলে নখ থেকে আর্দ্রতা হারিয়ে যায়। এতে নখ শুষ্ক ও ভঙ্গুর হয়ে যায়। তাই নখ কাটার পর হাতে একটু ময়েশ্চারাইজার লা’গিয়ে হাল্কা মাসাজ করে নিতে হবে।

নখ আমাদের শ’রীরের এক ধ’রনের ফাইবারযুক্ত টিস্যু। তাই নখ সহজে ফেটে যায়। এই ফাটল নখ দু’র্বল করে দেয়, নখকে আরও ভঙ্গুর করে তোলে।
নখ ফাইলিং করা একটা গু’রুত্বপূর্ণ কাজ। ফাইলিং করার সময় একটা কথা মাথায় রাখতে হবে। ফাইলিং সবসময় একদিক থেকে করা উচিত।

যদি নখ বাদামের মতো খোঁচা করে কাটা হয়, তাহলে নখ দু’র্বল হয়ে যেতে পারে। তাই গোলাকারভাবে নখ কাটতে হবে।

নখ যদি খুব বড় রাখতে না ইচ্ছে করে, তাহলে মোটামুটি দৈর্ঘ্য রেখে নখ কাটতে হবে। খুব ছোট করে নখ কাটলে নখের নিচের চামড়া বেরিয়ে আসবে। এতে র’ক্তপাত হওয়ার আশ’ঙ্কা থাকবে।

নিজস্ব ব্য’ক্তিগত নেলকাটার না থাকলে নেল কাটিং এর সমস্ত জিনিস জী’বাণুমু’ক্ত করে নিতে হবে। অ্যালকোহলযুক্ত কোনো স্যানিটাইজার দিয়ে এগুলো ধুয়ে নিতে হবে। শুকিয়ে গেলে তবে ব্যবহার ক’রতে হবে।

যদি দেখা যায় নখ খুব শক্ত হয়েছে, তাহলে না কাটাই ভালো। কয়েক মিনিট গরম পানিতে হাত চুবিয়ে নিয়ে তারপর কাটা উচিত।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*