কিশমিশ আর দই এর এতো গুণ আগে জানতেন কী!

কিশমিশ আর দই একসাথে খেলে যা ঘটবে আপনার শরীরে – দই ও কিশমিশ—দুটি খাবারই পৃথকভাবে নানান পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। কিন্তু এই দুটি খাবারকে মিশ্রণ করলে সুপারফুডে পরিণত হয়। যা শরীর সুস্থ রাখতে এবং নানান সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। দই ও কিশমিশ স্বাস্থ্যের পক্ষে কতটা উপযোগী জেনে নিন—

পিরিয়ডের কারণে ব্যথায় কষ্ট পেলে দই ও কিশমিশের মিশ্রণ খেতে পারেন। পাশাপাশি এর ফলে প্রিমেন্সট্রুয়াল সিন্ড্রোমের মোকাবিলায় সাহায্য পাওয়া যায়। এটি ঋতুস্রাবের সময় মহিলাদের সবচেয়ে সাধারণ সমস্যা।
বিশেষজ্ঞদের মতে, দইয়ের মধ্যে কিশমিশ মিশিয়ে খেলে চুল সাদা ও রুক্ষ হয় না।

দই-কিশমিশ খারাপ ব্যাকটেরিয়াকে দুর্বল করে দেয় এবং ভালোগুলোর বিকাশ ঘটায়। এর পাশাপাশি দই এবং কিশমিশ অন্ত্রের ফোলাভাব কম করে। কারণ দই প্রোবায়োটিক হিসেবে কাজ করে, আবার কিশমিশে প্রচুর পরিমাণে দ্রাব্য ফাইবার থাকায় এটি প্রিবায়োটিক হিসেবে কাজ করে।

একটি বাটিতে পূর্ণ ফ্যাটের গরম দুধে কালো কিশমিশ ও আধা চামচ দই বা ছাছ মিশিয়ে পান করুন। এর ফলে রুক্ষ ত্বকের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। পাশাপাশি ত্বকে চুলকানির সমস্যা থাকলে, তা-ও এর প্রভাবে দূর হয়।

দই ও কিশমিশের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ক্যালশিয়াম থাকে। হাড় ও জয়েন্ট মজবুত করতে সাহায্য করে দই ও কিশমিশ। পাশাপাশি হাড়ের ঘনত্ব বৃদ্ধি করতেও সহায়ক এই কম্বিনেশন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*